Home GENERAL বক্সার সৌন্দর্য দেখতে ফোর্টের মাঠে গ্যালারি তৈরি করছে জেলা প্রশাসন

বক্সার সৌন্দর্য দেখতে ফোর্টের মাঠে গ্যালারি তৈরি করছে জেলা প্রশাসন

SHARE

২৮শে জুন ২০২১, ওয়েভ ইন্ডিয়া বাংলা , ওয়েব ডেস্ক :-হিমালয়ের সিঞ্চুলা রেঞ্জের অধীনে রয়েছে বক্সা পাহাড় ও ফোর্ট। তার সঙ্গে যুক্ত হয়েছে বক্সা ব্যাঘ্র প্রকল্পের সংরক্ষিত ঘন সবুজ জঙ্গল। দেশ-বিদেশের পর্যটকদের স্বার্থে সেই বক্সা ফোর্টের পাশে থাকা মাঠে এবার গ্যালারি তৈরির পরিকল্পনা নিয়েছে আলিপুরদুয়ার জেলা প্রশাসন। এমনটাই জানিয়েছেন কালচিনির বিডিও প্রশান্ত বর্মন।  প্রকৃতি সেখানে যেন তার যাবতীয়  সৌন্দর্য উজাড় করে দিয়েছে। সবুজ অরণ্য ঘেরা বক্সা পাহাড়ে সৌন্দর্য্যের সঙ্গে অহঙ্কার হয়ে দাঁড়িয়ে ইংরেজদের তৈরি ঐতিহাসিক বক্সা ফোর্ট। যাতে পর্যটকরা গ্যালারিতে বসে একই সঙ্গে বক্সা পাহাড়, বক্সার জঙ্গল ও ফোর্টের নৈসর্গিক  সৌন্দর্য উপভোগ করতে পারেন। তবে জেলা প্রশাসনের এই পরিকল্পনা একেবারেই প্রাথমিক পর্যায়ে। কারণ, রাজ্য বনদপ্তর ছাড়পত্র না দিলে এই পরিকল্পনা বাস্তবায়িত করা সম্ভব নয়। তাই বক্সা ফোর্টের পাশে থাকা ওই মাঠে গ্যালারি তৈরির আগে সংশ্লিষ্ট ইঞ্জিনিয়ারদের দিয়ে প্রশাসন একটি সার্ভে করবে। তারপর ছাড়পত্রের জন্য সেই সার্ভে রিপোর্ট সহ পরিকল্পনা বনদপ্তরের কাছে পাঠাবে প্রশাসন। জেলাশাসক সুরেন্দ্রনাথ মিনা বলেন, নিয়ম মেনে ও বনদপ্তরের ছাড়পত্র নিয়ে বক্সা ফোর্টের পাশে থাকা ওই মাঠে গ্যালারি তৈরির পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। যাতে বাইরে থেকে আসা পর্যটকরা এই গ্যালারিতে বসে পাহাড়, জঙ্গল ও ফোটের্র  সৌন্দর্য উপভোগ করতে পারেন।  গ্যালারির কাজে আর্কিওলজিক্যাল বিভাগ ও পূর্তদপ্তরের ভূমিকাও থাকবে। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে আলিপুরদুয়ারের রাজভাতখাওয়া পঞ্চায়েতের বক্সা পাহাড়ের উচ্চতা ২৭০০ ফুট। আলিপুরদুয়ারে রাজ্যের অন্যতম এই পর্যটন কেন্দ্রে সারা বছর দেশ-বিদেশের পর্যটকদের আনাগোনা লেগে থাকে। রাজাভাতখাওয়া পঞ্চায়েতের সমতল সান্তলাবাড়ি থেকে বক্সা ফোর্টের দূরত্ব ৬ কিমি। এরমধ্যে সান্তলাবাড়ি থেকে ভিউ পয়েন্ট পর্যন্ত ৩ কিমি রাস্তা পাকা। বাকি ৩ কিমি রাস্তা পর্যটকদের পাহাড়ের গা বেয়ে হেঁটে যেতে হয়।

রাজাভাতখাওয়ায় বনদপ্তরের প্রকৃতি পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে সাংবাদিক সম্মেলনে বক্সা ফোর্টের মাঠে গ্যালারি তৈরির পরিকল্পনার বিষয়টি জানান কালচিনির বিডিও প্রশান্ত বর্মন। তিনি বলেন, জেলায় পর্যটন-অর্থনীতির প্রসারে বক্সা ফোর্টের মাঠে ওই গ্যালারি তৈরির পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। গ্যালারিটি কংক্রিটের হবে। প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, পুরাতত্ত্ব বিভাগের ছাড়পত্র নিয়ে ঐতিহাসিক বক্সা ফোর্ট সংস্কারের কাজ শুরু হয়েছে। এবার পর্যটকদের প্রকৃতির নৈসর্গিক দৃশ্য উপভোগের জন্য ওই গ্যালারি তৈরির পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। এই পরিকল্পনা বাস্তাবায়িত হলে দেশ-বিদেশের পর্যটকরা গ্যালারিতে বসে বক্সা পাহাড়, বক্সা ফোর্ট ও বক্সা জঙ্গলের নয়নাভিরাম প্রাকৃতিক দৃশ্য ক্যামেরাবন্দি করতে পারবেন। পাহাড়ের হিমেল হাওয়া গায়ে মেখে পর্যটকরা প্রকৃতির  সৌন্দর্যের সঙ্গে মিলেমিশে একাকার হয়ে যাবেন। আলিপুরদুয়ারের একটি প্রকৃতিপ্রেমী সংগঠনের কর্তা বলেন, বক্সা ফোর্টের পাশে থাকা ওই মাঠে গ্যালারি তৈরিতে অসুবিধা নেই। তবে ফোর্টের আশপাশ এলাকা ধসপ্রবণ। সেজন্য আমরা চাই, বক্সা ফোর্টের যাতে কোনও ক্ষতি না হয়, সেকথা মাথায় রেখেই যেন ওই গ্যালারি তৈরি হয়।

 

 

SHARE

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here