Home Breaking News শঙ্খ ঘোষের প্রয়াণে শোকস্তব্ধ সাহিত্য থেকে রাজনৈতিকমহল

শঙ্খ ঘোষের প্রয়াণে শোকস্তব্ধ সাহিত্য থেকে রাজনৈতিকমহল

SHARE

২১শে এপ্রিল ২০২১, ওয়েভ ইন্ডিয়া বাংলা , ওয়েব ডেস্ক :- বাংলা সাহিত্যজগতে তিনি ছিলেন বটগাছের মতো। আর তাই কবি শঙ্খ ঘোষের প্রয়ানে শোকস্তব্ধ সাহিত্যজগৎ। কবির কলম থমকে যাওয়ায় ভাষা হারিয়েছেন তাঁর শিষ্য এবং বন্ধুসম সাহিত্যিকরাও। বাকরুদ্ধ হয়েছেন জয় গোস্বামী, সুবোধ সরকার, অমর মিত্র, শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়ের  মতো সাহিত্যিকরা। অগ্রজপ্রতিম কবিকে চিরতরে হারিয়ে তাঁদের মন্তব্য, মাথার উপর বটবৃক্ষের মতো ছিলেন শঙ্খ ঘোষ। সেই ছাদটা যেন আচমকাই সরে গেল।অন্যায়ের বিরুদ্ধে বারবারই গর্জে উঠেছে কবি শঙ্খ ঘোষের কলম। চিরবিদায়ের লগ্নে সবাই স্মরণ করলেন তাঁকে। সাহিত্য জগতের পাশাপাশি রাজনৈতিক জগতও শোকস্তব্ধ।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি – সাহিত্য আকাদেমি পুরস্কারে সম্মানিত, জ্ঞানপীঠ, কবি শঙ্খ ঘোষের প্রয়াণে শোকজ্ঞাপন করেছেন দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। টুইটে নরেন্দ্র মোদি লেখেন, বাংলা ও ভারতীয় সাহিত্যে শঙ্খ ঘোষ তাঁর অবদানের জন্য চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবেন। বিশ্বব্যাপী তাঁর লেখা প্রশংসিত। তাঁর প্রয়াণে আমি শোকাহত। পরিবার ও পরিজনদের আমার সমবেদনা। ওঁম শান্তি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ – বাংলা সাহিত্য জগতের ইন্দ্রপতনে শোকবার্তা জানিয়েছেন দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীও। অমিত শাহ টুইটে লেখেন, সাহিত্য আকাদেমি পুরস্কারের সম্মানিত কবি শঙ্খ ঘোষের মৃত্যুর খবরে আমি শোকাহত। সমাজ প্রেক্ষাপটে লেখা তাঁর অসংখ্য কবিতা চিরকাল থেকে যাবে। তাঁর পরিবার ও অনুরাগীদের প্রতি আমার সমবেদনা। ওঁম শান্তি।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় – কবির প্রয়াণে বালুরঘাটে শোকজ্ঞাপন করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, আমাদের অতিপ্রিয় খুব নামজাদা বাংলার গর্ব আমরা হারিয়েছি। আমাদের এক সাহিত্যরত্ন কবিরত্ন শঙ্খ ঘোষকে কিছুক্ষণ আগে আমরা হারিয়েছি। কবির মেয়ের সঙ্গে আমার কথা হয়েছে। আমরা খুবই শোকাহত মর্মাহত।

জয় গোস্বামী- কবিকে হারিয়ে কার্যত কান্নায় ভেঙে পড়েছেন জয় গোস্বামী। তিনি বলেন, এ এক অপূরণীয় ক্ষতি। মাথার উপর থেকে সেই আশ্রয় সরে গেল। নিঃস্ব হলাম। শঙ্খ ঘোষকে গুরু হিসেবেই মানতেন তিনি। তাঁকে উদ্দেশ্য করেই লিখেছিলেন, ‘জয়ের শঙ্খ’।

সুবোধ সরকার – কবি সুবোধ সরকারের কথায়, সকলে বলছেন কবি শঙ্খ ঘোষ চলে গিয়েছেন। আমি বলব তিনি থেকে গিয়েছেন। এই থেকে যাওয়াটা কেবল বাংলা সাহিত্যে নয়, তিনি বাংলার ভূগোল ছাড়িয়ে সারা ভারতবর্ষের কবি হয়ে উঠেছিলেন। তিনি আরও বলেন, দিল্লিতে সাহিত্য অ্যাকাডেমিতে গিয়ে দেখেছিলাম, কীভাবে তাঁর লেখা পড়ার জন্য তীব্র আগ্রহ তৈরি হয়েছিল। তাই তিনি কেবল বাংলার নন, এই উপ মহাদেশের একজন প্রধান কবি।

ব্রাত্য বসু – নাট্যব্যক্তিত্ব তথা রাজনীতিবিদ ব্রাত্য বসু বলেন, একটা যুগের অবসান হল। শুধু কবি নন, ওনার রবীন্দ্রশিক্ষা, চর্চা, অধ্যাপনা, স্বতন্ত্র রাজনীতি সব মিলিয়ে একটা বিরাট অধ্যায়। তাঁর পরলোকগমনের সঙ্গে একটি যুগের অবসান হলো। তাঁর প্রয়াণে আমি গভীর ভাবে শোকাহত। ওঁর পরিবার-পরিজন এবং অসংখ্য সাহিত্যানুরাগীদের প্রতি রইলো সহমর্মিতা।

অমর মিত্র – শঙ্খ ঘোষের সঙ্গে কাটানো সময় নিয়ে স্মৃতিচারণা করেন কবি অমর মিত্র। তিনি বলেন, তিনি মৃদুভাষী ছিলেন। তাঁর বাড়িতে সাহিত্যিকদের আড্ডা বসত। সেই আড্ডায় অংশ নিতাম আমিও। তবে আজকাল আর যাওয়া হত না তেমন। দীর্ঘদিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন। গতবছর তাঁরই লেখা একটি কবিতার অনুবাদ করেছিলেন একজন। সেই অনুবাদ পাঠিয়েছিলাম কবির মেয়ের কাছে। দেখে প্রতিক্রিয়া দিয়েছিলেন কবি। অমর মিত্রের আরও সংযোজন, বটগাছের মতো ছায়া দিয়ে এসেছেন আমাদের। একটা বটগাছ উপড়ে পড়লে সেই অংশের আকাশটা যেমন খালি হয়ে যায়, ঠিক তেমনটাই অনুভূত হচ্ছে।

শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায় – প্রবাদপ্রতিম এই সাহিত্যিকের কথায়, মাথার উপর থেকে যেন ছাদ সরে গেল। মনটা খুব খারাপ। কিছুদিন আগেই ফোন করে শঙ্খদা কেমন আছেন জানতে চেয়েছিলাম মেয়ের কাছে। এত বয়সে করোনার জেরেই ফুসফুসের অসুখ হয়ে গিয়েছিল। দুঃশ্চিন্তা ছিল। সেই আশঙ্কাই যেন সত্যি হল। সাহিত্য জগতের অপূরনীয় ক্ষতি।

কৌশিক সেন – শঙ্খ ঘোষের প্রয়াণে শোকজ্ঞাপন করেছেন নাট্যকার কৌশিক সেন। তিনি বলেন, বিরাট ক্ষতি। আক্ষরিক অর্থেই অপূরণীয় ক্ষতি।  বরাবরই স্বতন্ত্র রাজনৈতিক সত্ত্বা নিয়ে চলেছেন শঙ্খ ঘোষ।

 

SHARE

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here