Home Sports এবার গ্রেফতার প্রাক্তন বাংলা জুনিয়র ক্রিকেটার !

এবার গ্রেফতার প্রাক্তন বাংলা জুনিয়র ক্রিকেটার !

SHARE

১৪ই অক্টোবর ২০২১, ওয়েভ ইন্ডিয়া বাংলা , ওয়েব ডেস্ক :-অভিযোগ মারাত্মক। দেশ জুড়ে ঘরোয়া ক্রিকেটে, কিংবা রাজ্য ক্রিকেটে, নয়তো আইপিএল দলের নেট বোলারের জায়গা পাইয়ে দেওয়ার ‘খেলা’ চলছে বেশ কিছু দিন ধরে। পরিবর্তে লাখ-লাখ টাকার লেনদেন চলছে। গুরগাঁও পুলিশের ইকোনমিক অফেন্সের কর্মীরা ৩ জনকে গ্রেফতার করার পর এই জালিয়াতি চক্রের বিশাল বিস্তারের খবর সামনে আসছে। সেই জলে ধরা পড়লেন এমন এক ক্রিকেটারের, যিনি বাংলা দলের হয়ে অনূর্ধ্ব – ১৯ দলে একসময় খেলেছেন। এখনও নিয়মিত সিএবি ক্লাব ক্রিকেটে খেলেন।

গত একমাসের উপর ধরে,উঠতি ক্রিকেটারদের ঘিরে এই অভিনব জালিয়াতি নিয়ে গোটা দেশ জুড়ে চলছে তদন্ত। একমাস আগে ৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়। এবার ২ জন আরও। দুজনই বাংলার। তাঁদেরই একজন ক্রিকেটার-দানিশ মির্জা। অন্যজন-অনুরাগ। তিনিও ক্লাব ক্রিকেটার।বাংলার ক্রিকেটে দানিশ খেলছেন অনেকদিন ধরে। টাউন, ঐক্য সম্মিলনী, ওয়াইএমসিএ, পাইকপাড়া স্পোর্টিং-এইসব দলের হয়ে খেলেছেন ডানহাতি ভিন রাজ্যের ক্রিকেটারটি। এখনও সিএবি ক্লাব ক্রিকেট লিগে খেলছেন।

পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, দানিশ আর অনুরাগ এক উঠতি ক্রিকেটারের থেকে ৪ লাখ টাকা নিয়েছেন। এবং কথা দিয়েছেন – একটি আইপিএল দলের বোলার হয়ে জায়গা করে দেবে। এটা নাকি হয়ে যাবে দানিশদের ‘স্ট্রং কানেকশন’ দিয়ে।

যে জুনিয়র ক্রিকেটারের থেকে টাকা নেন দানিশরা, তাকে বলা হয়, দানিশ নাকি একটি আইপিএল দলে নেট বোলার হয়ে একসময় ছিলেন। দানিশকে কলকাতা ক্লাব ক্রিকেট অনেকেই চেনে মারকুটে ব্যাটসম্যান বলে। অনুরাগ নিজেও কলকাতা ক্লাব ক্রিকেট খেলেছেন। তবে দানিশের মত জুনিয়র বাংলা দলে জায়গা করে নিতে পারেননি। তদন্তে গুরগাঁও পুলিশের ইকোনমিক অফেন্সের কর্মীরা এই কাণ্ডের মূল অভিযুক্ত পুলিশ হেফাজতে থাকা অসমের আশুতোষ বোরা’র থেকে এই দুজনের নাম জানতে পারে।

গত মাসে ৪ তারিখ, গুরগাঁওয়ের লে মেরিডিয়ান হোটেল থেকে গ্রেফতার করা হয়ছিল-আশুতোষ বোরা,চিত্রা বোরা এবং নীতিন ঝা-কে। নিউ পালাম বিহারের বাসিন্দা উঠতি ক্রিকেটার আনশুল রাজ সেক্টর ৫০ পুলিশ থানায় লিখিত অভিযোগ জানান। সেটা নেওয়া হয় ২৪ অগস্ট। অভিযোগকারী জানায়, ১০ লাখ টাকার বিনিময়ে রাজ্য দলে খেলানোর নিশ্চয়তা দিয়েছিল তারা।

তদন্ত করতে নেমে পুলিশ টের পায়, অভিযুক্তের একটি স্পোর্টস ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি আছে সহনা রোডে। দিল্লী, হরিয়ানা, রাজস্থান, মুম্বই আর গুজরাটের ১৮ জন উঠতি ক্রিকেটারের সঙ্গে চুক্তি করে। এইসব ক্রিকেটারের ‘প্রমোশন, ইমেজ বিল্ডিং, ট্রেনিং’ দেখভাল করার কাজ এই সংস্থাটির।

ইতিমধ্যে, তদন্তকারী দল সিআরপিসি (CrPC) সেকশন ৪১-এ নিয়মে ফেলে বিভিন্ন রাজ্য সংস্থা এবং প্রাক্তন ক্রিকেটারদের নোটিশ পাঠিয়েছে। তাতে বলে হয়েছে, তদন্তের স্বার্থে যাবতীয় সাহায্য করতে।

SHARE

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here