Home GENERAL মা-বাবার ছাড়াছাড়ি, পাণ্ডুয়ায় অভিমানে আত্মঘাতী কিশোরী

মা-বাবার ছাড়াছাড়ি, পাণ্ডুয়ায় অভিমানে আত্মঘাতী কিশোরী

SHARE

১৫ই সেপ্টেম্বর ২০২১, ওয়েভ ইন্ডিয়া বাংলা , ওয়েব ডেস্ক :-বাবা-মায়ের ডিভোর্স নিয়ে কথাবার্তা চলছে৷ সম্ভবত সেটা মেনে নিতে পারেনি ১১ বছরের অর্পিতা ৷ অভিমানে আত্মঘাতী হয় সে ৷ বুধবার দুপুরে মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটে পাণ্ডুয়ার সিমলাগড় চাপাহাটি গ্রামে ৷ খবর পেয়ে হাসপাতালে ছুটে যান মা ৷ তাঁর অভিযোগ, শ্বশুরবাড়ির লোকেরা মেয়েকে মেরে ফেলেছে ৷ অভিযোগ অস্বীকার করেছে অর্পিতার বাবা ৷ তাঁর পাল্টা অভিযোগ, সকালে মেয়ে গিয়েছিল মায়ের বাড়ি ৷ মায়ের বকা খেয়ে আত্মঘাতী হয় সে ৷ স্থানীয়রা জানিয়েছেন, অর্পিতার বাবা শিবু মুহুরি এবং মা সুপর্ণা মুহুরি আলাদা থাকেন ৷ গত চার মাস ধরে তাঁদের ডির্ভোসের কথাবার্তা চলছে ৷ এদিন সকালে সুর্পণার কাছেই ছিল অর্পিতা ৷ বেলা হতেই চাপাহাটি গ্রামের বাড়িতে ফিরে আসে ৷ সেই সময় ঘরেই ছিলেন শিবু৷ স্নান করে টিভি দেখছিলেন তিনি ৷ এর পর খাবার জন্য তিনি ডাকতে যান মেয়েকে ৷ তখনই দেখেন ভেতর থেকে দরজা বন্ধ ৷

মেয়ের সাড়াশব্দ না পেয়ে দরজা ভেঙে ঘরে ঢোকের তিনি৷ দেখেন, গলায় দড়ি দিয়ে ঝুলছে অর্পিতা ৷ সঙ্গে সঙ্গে পরিবারের লোকজন তাকে পাণ্ডুয়া গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যায়৷ সেখানে চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন ৷ মেয়ের মৃত্যুর খবর শুনে কান্নায় ভেঙে পড়েন মা ৷ অর্পিতার মৃত্যুর জন্য শ্বশুরবাড়ির লোকেদের দিকে আঙুল তুলেছেন ৷ কিন্তু শিবু মুহুরির অভিযোগ, সকালবেলায় মায়ের সঙ্গে কোনও কারণে মেয়ের অশান্তি হয়ে থাকতে পারে ৷ তাই বাড়ি ফিরে এসেই গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেছে ৷ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় পান্ডুয়া থানার পুলিশ ৷ ঠিক কি কারণে আত্মহত্যা তা পরিষ্কার নয় ৷ পুলিশ তদন্ত করে দেখছে ৷

 

SHARE

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here