SHARE

৩০শে জুলাই ২০২০, ওয়েভ ইন্ডিয়া বাংলা, ওয়েব ডেস্ক :- মুকুল রায়কে নিয়ে এখনো বিজেপির দলের অন্দরে অস্বস্তি রয়েছে। এর মধ্যেই আবার সরব হলেন অর্জুন সিং। প্রকট হয়ে উঠল রাজ্য বিজেপির গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব। বিজেপির সাত দিনব্যাপী সাংগঠনিক বৈঠক শেষ হয়েছে দিল্লিতে। আসন্ন ২০২১ বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি কিভাবে লড়বে তা নিয়েই বৈঠক ডাকা হয়েছিল। কিন্তু বৈঠকের শেষদিনে রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষের সামনেই ক্ষোভ উগরে দেয় ব্যারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং।

এই বৈঠকে অর্জুন সিং, রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ এবং বিজেপির আরও দুই একজন প্রভাবশালী নেতার সামনেই সরাসরি বলেন, “মাত্র দুই বা তিন জনের হাতেই রাজ্য বিজেপির ক্ষমতা কুক্ষিগত হয়ে রয়েছে।” রাজ্য নেতৃত্বের বিরুদ্ধে অসহযোগিতার অভিযোগ আনেন অর্জুন। সরাসরি নাম না করলেও অর্জুনের আক্রমণের মূল লক্ষ্য যে রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ এবং সাংগঠনিক সম্পাদক সুব্রত চট্টোপাধ্যায় তাতে কোন সন্দেহ নেই সূত্রের খবর। অর্জুন কেন্দ্রীয় নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয় এবং শিব প্রকাশের সামনেই বলেন বাংলার কয়েকজন নেতার বাইরে কারো মতামতকে গুরুত্ব দেওয়া হয় না।

সূত্রের খবর দিলীপ ঘোষের বিরুদ্ধে বিজেপির রাজ্য নেতৃত্বে আরও দুই একজন নেতা কেন্দ্রীয় কমিটির কাছে অভিযোগ জানিয়েছেন। বেশ কিছুদিন ধরেই দিলীপ ঘোষ গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে অভিযোগ একাধিক রাজ্য বিজেপি নেতার। রাজ্য বিজেপির এক সাংসদের কথায়, “নাডডা জী যদি সকলের সঙ্গে আলাদাভাবে কথা বলেন তাহলে ১৫ জনই রাজ্য নেতৃত্বের বিরুদ্ধে কথা বলবেন। কেন যে দিলীপদা সবাইকে নিয়ে কাজ করতে চাইছেন না বুঝতে পারছিনা।” তৃণমূল থেকে আসা বিজেপি নেতার কথায় যারা নতুন করে দলে এসেছেন তাদের কার্যত একঘরে করে রাখা হয়েছে।

রাজ্য বিজেপির কেউ কেউ মনে করছেন, বৈঠকের মাঝপথে মুকুল রায়ের দিল্লি থেকে চলে আসা এবং তার কিছুদিন পরেই রুদ্ধদ্বার বৈঠকে অর্জুন-সহ বেশ কিছু নেতার রাজ্য নেতৃত্বর বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দেওয়ার মধ্যে গভীর যোগসূত্র আছে। তবে দিল্লিতে সাংগঠনিক বৈঠকে ক্ষোভ প্রকাশের কথা অস্বীকার করেছেন অর্জুন। সংবাদমাধ্যমে তিনি বলেছেন, ‘এ রকম কিছুই হয়নি। দলীয় নেতৃত্বর বিরুদ্ধে কথা বলার কোনও প্রশ্ন নেই।’ রাজ্য বিজেপির সাংগঠনিক সম্পাদক সুব্রত চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘অত্যন্ত শান্তিপূর্ণ পরিবেশে বৈঠক হয়েছে। কোনও ক্ষোভ-বিক্ষোভ ছিল না। বিজেপির ক্ষতি করার জন্য এইসব খবর ছড়ানো হচ্ছে।’

SHARE

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here