Home Gadgets & Technology মেট্রো রেলের বিপর্যয় মোকাবিলায় কলকাতায় এলেন বিদেশি বিশেষজ্ঞরা

মেট্রো রেলের বিপর্যয় মোকাবিলায় কলকাতায় এলেন বিদেশি বিশেষজ্ঞরা

SHARE

৪ঠা সেপ্টেম্বর, স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা :- বউবাজারে মেট্রো রেলের কাজের জেরে তৈরি হওয়া বিপর্যয় মোকাবিলায় নেমেছে কলকাতা মেট্রোরেল কর্পোরেশনও। সুড়ঙ্গে ধস পরীক্ষা করতে বিদেশ থেকে উড়িয়ে আনা হল তিন বিশেষজ্ঞকে। মঙ্গলবার রাতেই তাঁরা কলকাতায় এসে পৌঁছান। এদের মধ্যে দুজন মাটি বিশেষজ্ঞ এবং অন্যজন সুড়ঙ্গ বিশেষজ্ঞ। হংকং থেকে মাটি বিশেষজ্ঞ জন এনরিকর্দ ও ডঃ পিছুমনি। দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে বিশ্ববিখ্যাত সুরঙ্গ বিশেষজ্ঞ ব্রিজ ক্রিস্টোফারও চলে এসেছেন শহরে। আরও এক সুড়ঙ্গ বিশেষজ্ঞ কলকাতায় আসছেন।

মেট্রো কর্তাদের কাছে এই মুহূর্তে বড় চ্যালেঞ্জ হল সুড়ঙ্গের মধ্যে থেকে ক্ষতিগ্রস্ত টানেল বোরিং মেশিনটিকে বের করে আনা। সেটি বের করে না নিয়ে আসা পর্যন্ত নতুন মেশিন ঢুকিয়ে সুড়ঙ্গ খোঁড়ার কাজও শুরু করা যাবে না। আপাতত তাই কঠিন চ্যালেঞ্জের সামনে পড়েছেন কেএমআরসিএল-এর ইঞ্জিনিয়াররা। তবে কঠিন এই প্রক্রিয়া শেষ করে ফের নতুন করে কবে থেকে সুড়ঙ্গ খোঁড়ার কাজ শুরু করা যাবে, তা নিয়ে তৈরি হয়েছে অনিশ্চয়তা।মঙ্গলবারই নবান্নের বৈঠকের পরে মেট্রো কতৃপক্ষের তরফে জানিয়ে দেওয়া হয়, বউবাজারে বিপত্তির জেরে প্রকল্পের কাজ শেষ করতে অন্তত এক বছর বেশি সময় লাগবে।

অন্যদিকে জোরকদমে চলছে টানেলে জল ভরার কাজ। জল দিয়েই আপাতত জল ঠেকানোর চেষ্টায় মেট্রোর বিশেষজ্ঞরা। কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশে ওই এলাকার প্রতিটি বাড়ি থেকে একজন করে তাঁদের বাড়িতে গুরুত্বপূর্ণ নথিপত্র ও জরুরি জিনিসপত্র ফিরিয়ে আনার জন্য যেতে পারছেন। এরজন্য ভিড় বাড়ছে স্যাকরাপাড়া লেন, দুর্গা পিতুরি লেন, গৌর দে লেনে। পুরকর্মী ও দমকলকর্মীদের সঙ্গে নিয়েই প্রাণ হাতে করে তাঁরা যাচ্ছেন প্রায় ধ্বংসস্তূপে পরিণত হওয়া বাড়িগুলিতে। বউবাজারের গৌর দে লেনের একটি বস্তি খালি করার নির্দেশ দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। এখনও পর্যন্ত কলকাতার প্রায় সাতটি হোটেলে ঠাঁই নিয়েছেন ৪০০ জনের বেশি মানুষ।

SHARE

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here